×

মাত্র ১৫ মাস বয়সে দুর্দান্ত তবলা বাজিয়ে তাক লাগালো ছোট্ট খুদে, ভাইরাল ভিডিও

১৫ মাসেই এক খুদে তবলা বাজিয়ে নেটজেনেদের মন জয় করলো।

মাত্র ১৫ মাসেই এক খুদের তবলা বাজানোর দক্ষতা থেকে আকাশ থেকে পড়বেন। সোশ্যাল মিডিয়া এখন সবার জন্যে। এখানে বাচ্চাদের ভিডিও মাঝে মধ্যেই পোস্ট করে অনেকেই সাবস্ক্রাইবার বাড়ান। এছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়াই এখন বাচ্চাদের মানুষ করার জন্যে যেন মায়েদের মূল অস্ত্র হয়ে গিয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনও গান শুনতে শুনতে বা মজার মজার কার্টুন দেখাতে দেখাতে বাচ্চাদের সহজেই খাওয়ানো এবং ঘুম পারানো যায়। তেমনি একটু বড় হয়ে গেলেই বাচ্চাদের ইন্টারনেটের মাধ্যমে গান এবং নাচ শেখানোও যায়।

আর এখনকার দিনের বাচ্চারা একেকটা চাবুকের মতো ধারালো। তাঁদের আলাদা করে এক্সপ্রেশন বা নাচের কৌশল শেখাতে হয়না তাঁরা যেন এক একটা সাহসী। বড়দের দেখাদেখি এখন বাচ্চারাও সব কৌশল শিখে যাচ্ছে। বলা চলে, এখন যেন বাচ্চারা এক একটা নিখুঁত প্রতিভা নিয়েই জন্মগ্রহণ করছে। তেমনি সম্প্রতি এমনই একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। দেখা যাচ্ছে, তবলায় তালিম দিচ্ছে।

অবাক হবেন এটা শুনলে যে, বাচ্চাটির বয়স মাত্র ১৫ মাস। সুতরাং বোঝাই যাচ্ছে, মায়ের গর্ভের থেকেই সে একেবারে প্রতিভা নিয়েই জন্মেছে। ভিডিওতে দেখা গিয়েছে, কেউ একজন তালিম বলছে আর বাচ্চাটি তাঁর হাত নাড়িয়ে নাড়িয়ে তবলায় ধ্বনি তুলছে। এক্কেবারে নিখুঁতভাবে। আর এই ভিডিও দেখেই তাজ্জব হয়েছেন নেটদুনিয়া। সবাই বাচ্চাটির গুনে মুগ্ধ, সঙ্গে তাঁর পরিবারের শিক্ষার ওপরেও। এমনকি ছোট্ট বাচ্চাটি যে শুধু তবলা বাজানোর চেষ্টা করেছে তা নয়! পেছন থেকে একজনের গলার স্বরও পাওয়া গিয়েছে। যিনি বাচ্চাটিকে তবলা বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে গানও শেখাচ্ছেন। বাচ্চাটিও তবলা বাজানোর সঙ্গে সঙ্গে গান করার চেষ্টা করছে। লোকটি বলছে না ধিন ধিন না, সঙ্গে সঙ্গে বাচ্চাটিও বলছে “না ধিন ধিন না”। তাঁর ভাষা এখনও স্পষ্ট নয়। সত্যি অবিশ্বাস্য বিষয়।

সম্প্রতি এই মিষ্টি ভিডিওটি Asif Firdousi নামক একটি ইউটিউব চ্যানেল থেকে পোস্ট করা হয়েছে। যাতে এখনো পর্যন্ত কয়েক হাজার পছন্দের সংখ্যা পৌঁছেছে। এই ক্ষুদে পরবর্তীকালে যে সত্যিই বড় বাপের তবলিয়া হবে, তা নিশ্চিত। একটি সবুজ রঙের মিষ্টি দেখতে গেঞ্জি আর প্যান্ট পরে শান্ত ছেলের মতো তবলা বাজানোর চেষ্টা করছে সে। ভিডিওটি ২ লক্ষের কাছাকাছি ভিউজ অতিক্রম করেছে। অনেকে আবার বলছেন, ওস্তাদ জির জবাব নেই। আবার কেউ বলছেন, তাঁর বাবাই হয়তো তালিম দিচ্ছেন ছেলেকে। সব মিলিয়ে এই ভিডিওটি রীতিমতো ইন্টারনেটে রাজ করছে।

Related Articles