×

বন্ধ ঘরে ঢুকে পড়েছে বিষধর কোবরা সাপ, ভিডিও দেখে শিউরে উঠল নেটিজেনরা

সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমরা নানা পশু পাখিদের ভিডিও খুব সহজে দেখতে পায়।

সরীসৃপ প্রাণীদের মধ্যে সাপ অত্যন্ত ভয়ঙ্কর একটি প্রাণী। পৃথিবীতে অনেক ধরনের সাপ দেখতে পাওয়া যায়। অনেক সাপ দংশন করলেও যে কোনও প্রাণীর তেমন কোনো ক্ষতি হয় না। আবার কিছু কিছু সাপ এতটাই ভয়ঙ্কর যে, যে কোনও প্রাণীকে দংশন করলে সেখানেই সেই প্রাণী বা মানুষটি মৃত। আবার কিছু কিছু সাপের দংশনে চট করে মারা না গেলেও সারা শরীর পচে গিয়ে ধীরে ধীরে সেই প্রাণী পরলোকগমন করে। অর্থাৎ সাপের কাছে কোনও প্রাণীই ছাড় পায় না। যদিও পৃথিবীতে অনেক শান্ত স্বভাবের সাপও রয়েছে।

বড় অজগর সাপ আবার শিকার হিসেবে আস্তো মানুষ গিলে ফেলতেও পারে। এদিকে চারিদিকে যে হারে বন জঙ্গল কেটে ফেলা হচ্ছে, তার ফলে লোকালয়ে বিভিন্ন সাপ বেরিয়ে আসছে। বর্ষাকালে গ্রামের মানুষদের বাসস্থানে হামেশাই সাপকে লুকিয়ে থাকতে দেখা যায়। বর্ষার জল থেকে বাঁচতে বিভিন্ন ঘরে আশ্রয় নেয় তখন সাপ। অযথাই মানুষকে ভয় দেখায়। বেশিরভাগ সময়েই রান্না ঘরের কোনায় এবং গোয়াল ঘরে লুকিয়ে থাকতে দেখা যায় বিষধর সাপকে।

আবার কখনও জুতোর তলা দিয়ে সাপ বেরোচ্ছে। আবার কখনও ব্যস্ততম রাস্তায় সাপ বেরিয়ে পড়ছে। সম্প্রতি নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে একটি বিশালাকার সাপের ভিডিও। যার নাম ভেনোমাস। সাপেদের মধ্যে অত্যন্ত ভয়ঙ্কর এই সাপটি। যদিও এই সাপকে দেখতেও খুব সুন্দর। এবার এক বড় গোডাউন থেকে উদ্ধার হল এই সাপ। একেবারে কয়েকটি বস্তার একেবারে নিচ থেকে উদ্ধার হল এই বিশালাকার সাপটি। আর তাকে উদ্ধার করল মির্জা আরিফ নামে জনৈক সাপ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ব্যক্তিটি।

ওই গোডাউনে সাপটিকে দেখা মাত্রই সেখানকার কর্মীরা সাপ উদ্ধারকারীকে খবর দেন। হ্যাঁ ‘মির্জা মোহাম্মদ আরিফ’। যিনি সাপ ধরার পেশার সঙ্গেই যুক্ত। পেশাদার মানুষ ছাড়া সাপ ধরা অসম্ভব। এতে মানুষের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। সম্প্রতি মির্জা নিজেই তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে সাপ ধরার ভিডিওটি আপলোড করেছেন। তাঁর সাপ ধরার কৌশল দেখে সবাই রীতিমতো অবাক হয়েছেন। তিনি এসে ওই বস্তার তলা থেকে ভেনোমাস সাপটিকে উদ্ধার করে। প্রথমে তো সাপটি কোনভাবেই তার কাছে ধরা দিতে চায়নি। এরপর সে ক্রেনের মাধ্যমে অত্যন্ত সন্তর্পণে সাপটিকে বাইরে বের করে বস্তার মধ্যে পুড়ে চলে গেল।

Related Articles