×

একমাস যেতে না যেতেই বড় গলদ পদ্মা সেতুতে, বয়ে যাবে প্রজন্মের পর প্রজন্ম

মাত্র ২ মাসের মধ্যেই ত্রুটি ধরা পড়ল বাংলাদেশের প্রাণ পদ্মা নদীর ওপরে গঠিত পদ্মা সেতুর মধ্যে। ত্রুটি ধরা পড়ার পর পুনরায় এই সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। এই সেতু উদ্বোধনের দিন থেকেই এই সেতু নিয়ে মেতে উঠেছিলেন বাংলাদেশের সেলিব্রিটি থেকে আমজনতা সবাই। হবে নাই বা কেন, এই সেতু নির্মাণের পেছনে বাংলাদেশের প্রতিটা মানুষের স্বপ্ন লুকিয়ে রয়েছে। স্বপ্নকে বাস্তব রূপে দেখা কটা মানুষের সৌভাগ্য হয় তাই না! এমনকি এই সেতু নির্মাণের পরিকল্পনা ছিল অনেক বছরের। পদ্মা সেতুর উদ্বোধনও হয়েছিল ধুমধাম করেই।

কিন্তু উদ্বোধনের দু মাস বাদেই পদ্মা সেতুতে ত্রুটি ধরা পড়ল, তাই ফের নতুন করে এই সেতু নির্মাণের কাজ শুরু হবে বলে জানা গিয়েছে। সূত্রের খবর, সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে ২০২৪ থেকে জনগণের সেবায় খুলে দেওয়া হবে পদ্মা সেতু। আর এই বছরগুলিতে পদ্মা সেতুর রেলের নকশার পরিবর্তন করে দেওয়া হবে। কারণ রেল লাইনের স্প্যানের ভিতরে যে ২ হাজার ৯৫৯টি রেলওয়ে স্ল্যাব বসানো হয়েছিল সেগুলোর উচ্চতা রেললাইনের জন্য তৈরি করা ডিজাইনের থেকেও বেশি হয়েছে।

তাই সেগুলির পরিবর্তন করা হবে। আর এর উচ্চতা বেশি হওয়ার কারণে রেল যাতায়াতের অসুবিধা দেখা দিতে পারে, এবং ওই স্ল্যাবের উপর রেললাইন বসানো হলেও তা সমান হবে না। এতে করে যখন তখন বড়সড় বিপর্যয়ের সম্মুখীন হতে পারে। তাই যত তাড়াতাড়ি সম্ভব রেললাইনে স্ল্যাব ও পাত সরিয়ে পুনরায় ঠিক করে বসানো হবে। তাই ২০২৪ সাল পর্যন্ত সময় চেয়ে নেওয়া হয়েছে।

পদ্মা সেতুতে রেললাইন তৈরির কাজ শুরু হয়েছিল ২০১৮ সাল থেকে। কিন্তু, নতুন করে ত্রুটি ধরা পড়ায় ফের কাজ শুরু হতে চলেছে। এই প্রসঙ্গে বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী জানিয়েছেন, “রেললাইনের কাজ করতে গিয়ে কিছু ত্রুটি ধরা পড়েছে। সেগুলি ঠিক করে কাজ করা হবে। পদ্মা সেতুর অগ্রাধিকার সড়কপথ। তা ইতিমধ্যেই চালু করা হয়েছে। রেলের প্রকল্প শেষ করার জন্য এখনও সময় আছে। ২০২৪ সালের নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই প্রকল্পের কাজ সম্পূর্ণ করা হবে।”

Related Articles

Back to top button