×

এইভাবে সয়াবিনের মুইঠ্যা বানালে স্বাদ হবে দুর্দান্ত, গরম ভাতের সাথে জাস্ট জমে যাবে

আমিষ পদ্ধতিতে খুব কম সময়ের মধ্যে বানিয়ে ফেলুন সোয়াবিনের মুইঠ্যা, শিখে নিন রেসিপি।

বাঙালিরা হলেন ভোজন রসিক। বাংলাদেশের অনেক খাবারই এপার বাংলার মানুষরা বানিয়ে থাকেন। মাছ-মাংস বাঙালির খুবই প্রিয় খাবার। আজ জানাতে চলেছি সয়া মুইঠ্যা বানানোর পদ্ধতি। চিতল মাছের মুইঠ্যার সঙ্গে সকলেই ওতোপ্রতোভাবে জড়িত। এবার আমিষ পদ্ধতিতে সোয়াবিনের মুইঠ্যা বানাবেন কি করে জেনে নিন।

উপকরণ

৫০ গ্রাম সয়াবিন
১ টামাঝারি আকারের সেদ্ধ আলু
৪ টে পেঁয়াজ বাটা
১৫ কোয়া রসুন বাটা
৩ ইঞ্চি আদা বাটা
৪ টে কাঁচা লঙ্কা বাটা
২ টি এলাচ থেঁতো করা
২টি লবঙ্গ
১ইঞ্চির দারচিনির টুকরো
১/৪চা চামচ গোটা জিরে
১টেবিল চামচ চারমগজ বাটা
৫ টা কাজুবাদাম বাটা
১০ টা কিসমিস বাটা
১০-১২ টা চীনাবাদাম বাটা
স্বাদ মতো লবন ও চিনি
১ চিমটি হলুদ গুঁড়ো
১/৪ চা চামচ কাশ্মীরি লঙ্কা গুঁড়ো
১/৪ চা চামচ গরম মশলা গুঁড়ো
১/৪ চা চামচ মিট মশলা গুঁড়ো
১ চা চামচ ঘি
স্বাদমতো জল
স্বাদমতো তেল

প্রণালী

প্রথমে সোয়াবিনগুলিকে এক চামচ লবণ দিয়ে সেদ্ধ করে নিয়ে ভালো করে জল ঝরিয়ে নিতে হবে। এরপর সেগুলি মিক্সার গ্রাইন্ডারে পেস্ট করে নিতে হবে। এরপর সেদ্ধ করে রাখা আলু, ১ চামচ ময়দা মিশিয়ে দিতে হবে।

এরপর একটি মিডিয়াম সাইজের পেঁয়াজ বাঁটা, আদা রসুন বাঁটা, স্বাদ অনুযায়ী নুন, চিনি দিয়ে সোয়াবিনের পেষ্টটির সঙ্গে ভাল করে মেখে নিতে হবে। এবার ফ্রাইং প্যানের মধ্যে সর্ষের তেল গরম করে পেস্টটিকে হাতের মধ্যে মুইঠ্যা করে বানিয়ে দুই পিঠ ভালো করে ভেজে নিতে হবে।

এরপর তরকারি বানানোর জন্য সরষের তেল গরম করে ১চা চামচ ঘি দিয়ে তার মধ্যে পিয়াজ রসুন আদা বাটা দিয়ে ভাল করে কষিয়ে নেওয়ার পর তার মধ্যে ধনে, জিরে, কাজু, কিসমিস এবং চালমগজ বেটে ভাল করে কষিয়ে নিতে হবে।

এরপর রেড চিলি পাউডার, নুন, পরিমাণমতো জল দিয়ে ঘন হয়ে এলেই ভেজে রাখা বড়াগুলিকে দিয়ে কিছুক্ষণ রেখে রান্না করে নিলেই তৈরি সোয়াবিনের মুইঠ্যা।

Related Articles