×

এক থালা ভাত নিমেষে হবে ফাঁকা, যদি পাতে থাকে সর্ষে বেগুন, শিখে নিন রেসিপি

বেগুনের এই অসাধারণ রেসিপি হার মানাবে মাছ মাংসের স্বাদকে।

শীতকালীন অন্যান্য সব্জির তুলনায় বেগুনও অনেকে খেতে পছন্দ করেন। যদিও বেগুন সারাবছরই বাজারে পাওয়া যায়। বেগুনে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, আয়রন, জিঙ্ক, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা কোলোন ক্যান্সার প্রতিরোধ, ডায়াবেটিস, হার্টের সমস্যা ও কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে। ত্বক ও চুলের যত্নেও বিশেষ উপকারী বেগুন। প্রতিটি বাঙালি বাড়িতেই বেগুনের নানা পদ বানানো হয়, যেমন-বেগুন ভাজা, বেগুন ভর্তা, বেগুন সর্ষে। কিন্তু প্রতিদিন একই ধরণের পদ খেতে নিষ্পত্তি পেতে আজকে রান্নাঘরে বানিয়ে নিন বাহারি সর্ষে বেগুন ভাপা। জেনে নিন রেসিপি।

উপকরণ

১. বেগুন
২. কাঁচালঙ্কা
৩. টকদই
৪. হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কাগুঁড়ো
৫. সর্ষে
৬. পোস্ত
৭. নারকেল কোরা
৮. পরিমাণ মত নুন
৯. সামান্য চিনি স্বাদের জন্য
১০. রান্নার জন্য সর্ষের তেল

প্রণালী

প্রথমে বেগুন ভালো করে পরিষ্কার করে লম্বা লম্বা টুকরো করে নিন। এরপর বেগুনের মধ্যে নুন, হলুদ গুঁড়ো, লঙ্কা গুঁড়ো ও চিনি দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার কড়াইতে তেল গরম করে মশলা মাখানো বেগুন হালকা করে ভেজে তুলে নিন।

এরপর রান্নার জন্য একটা পেস্ট তৈরী করতে হবে। এরপর একচামচ সর্ষে, পোস্ত ও নারকেল কোরা, চারটে কাঁচা লঙ্কা নিয়ে মিক্সিতে বেটে নিন। এরপর মশলার পেস্টটি তৈরি হয়ে গেলে তার মধ্যে এক চামচ ফেটানো টক দই, দেড় চামচ কাঁচা সর্ষের তেল ও সামান্য নুন দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন।

তবে খেয়াল রাখবেন যাতে খুব বেশি ঘন না হয়, আবার খুব বেশি পাতলা না হয়। এবার একটি স্টিলের টিফিনের মধ্যে মশলা নিয়ে হালকা ভাজা বেগুনগুলিকে টিফিন বন্ধ করে রেখে দিতে হবে। এরপর একটা কড়াইতে জল নিয়ে বেগুন রাখা টিফিন বাটি বসিয়ে ১০-১২ মিনিট ভাপিয়ে নিন। ১০-১২ মিনিট পর ঢাকনা খুলে নিলেই তৈরি দুর্দান্ত স্বাদের সর্ষে বেগুন।

Related Articles