×

এইভাবে মুগ ডাল দিয়ে ঝিঙের ঘন্ট বানালে স্বাদ হবে দুর্দান্ত, গরম ভাতের সাথে জাস্ট জমে যাবে

মুগ ডাল ও ঝিঙে দিয়ে বানিয়ে ফেলুন অসাধারণ স্বাদের রেসিপি, গরম ভাতের সাথে জাস্ট জমে যাবে।

ঝিঙে আর মুগ ডাল দিয়ে তৈরী করুন, দুর্দান্ত ঝিঙের ঘন্ট। সম্পূর্ণ এই নিরামিষ পদটি সহজেই হার মানাবে মাছ মাংসের সুস্বাদু পদকেও। তাই ঘরে মাছ-মাংস না থাকলে বা নিরামিষের দিনে মুখরোচক কোনও খাবার বানাতে চাইলে সহজেই রান্না করে নিতে পারেন অসাধারণ রেসিপিটি। এছাড়া ঝিঙে শরীরের পক্ষে বেশ আরামদায়ক। কারণ ঝিঙে পেট ঠান্ডা করতে সহায়তা করে। অন্যদিকে মুগডালও পুষ্টিকর। সুতরাং এই দুয়ের তৈরী রেসিপি শরীরের পক্ষেও ভীষণ উপকারী। এবার দেখে নিন এই অসাধারণ রেসিপিটির পদ্ধতি।

উপকরণ

৫০০ গ্রাম ঝিঙে
একটি মাঝারি আকারের আলু
হাফ কাপ মুগ ডাল
পাঁচফোড়ন
শুকনো লঙ্কা
তেজপাতা
লাল লঙ্কার গুঁড়ো
কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো
ধনে গুঁড়ো
জিরে গুঁড়ো
গ্রেট করে রাখা আদা
জল সর্ষের তেল
স্বাদমতো নুন

প্রণালী

প্রথমে ঝিঙে ও মাঝারি আকারের আলু ভালো করে ধুয়ে টুকরো টুকরো করে কেটে নিতে হবে। এরপর হাফ কাপ মুগ ডাল ভালো করে ধুয়ে আধ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখতে হবে জলে।

এরপর গ্যাসে কড়াই বসিয়ে ২ চামচ তেল দিয়ে ডুমো ডুমো করে কেটে রাখা আলুর মধ্যে হলুদ এবং নুন দিয়ে ভেজে নিতে হবে। এরপর আলু তুলে নিয়ে কড়াইয়ের মধ্যে হাফ চামচ পাঁচফোড়ন, ২ টো শুকনো লঙ্কা, তেজপাতা দিয়ে ভেজে নিতে হবে। এরপর তার মধ্যে ভিজিয়ে রাখা মুগ ডাল জল ঝরিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিতে হবে।

এরপর তার কেটে রাখা ঝিঙে দিয়ে ভালো মিশিয়ে তার মধ্যে সামান্য লাল লঙ্কার গুঁড়ো, কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো, ধনে গুঁড়ো, জিরে গুঁড়ো, গ্রেট করে রাখা আদা, দিয়ে সামান্য জল দিয়ে আবারো ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর জল দিয়ে সাত মিনিট ঝিঙে ও ডাল সেদ্ধ করে নিতে হবে।

এরপর তার মধ্যে সামান্য ঘি এবং একটি স্পেশাল ভাজা মশলা (গোটা ধনে, গোটা জিরে, দারচিনি, ছোটো এলাচের সংযোজন) দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে আরও কিছুক্ষন রান্না করে নিলেই তৈরি হয়ে যাবে এই অসাধারণ নিরামিষ ঘন্ট, যা ভাত রুটি সবের সঙ্গেই একেবারে জমে যাবে।

Related Articles