×

জবা গাছে ১ চামচ দিয়ে দিন এই সিক্রেট জিনিসটি, ফুলে ফুলে ভরে যাবে, শিখে নিন বিশেষ পদ্ধতি

বাড়িতে ফুল গাছ থাকলেও বাড়ির সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি হয়, পাশাপাশি পুজোতেও বিভিন্ন ফুল ব্যবহার করা হয়।

বাড়ির বাগান বা ছাদে টবের মধ্যে বিভিন্ন রকমের ফুল, ফল, সবজির চাষ করেন এরকম অনেকেই আছেন। তবে বাড়ির যত্নে অনেক সময়েই গাছের ফলন খুব একটা ভালো হয় না।মাঝেমধ্যেই লেবু গাছের ফুল ফুটলেও তার যত্নের অভাবে ঝরে পড়ে যায়। লঙ্কা গাছের ক্ষেত্রেও এই সমস্যা দেখা দেয়, যত্নের অভাবে লঙ্কা গাছের পাতাও হলুদ হয়ে যায়। তবে গাছের যত্নের জন্যে ভাতের মার বা ফ্যান বা পেঁয়াজের খোসা বা রসুনের খোসা দেওয়া যেতে পারে।

আসলে অনেক মানুষই গাছ (Tree) লাগাতে পছন্দ করেন। কিন্তু মাঝে মধ্যেই ব্যস্ততার জন্যে গাছ ব্যবহার করা হয়ে ওঠে না। তাই অযত্নে গাছ নষ্ট হয়ে যায়। এদিকে বাজার চলতি রাসায়নিক সার ও কীটনাশক প্রয়োগ করে গাছ বেশি নষ্ট হচ্ছে। তাই এবার বিভিন্ন ঘরোয়া টোটকার মাধ্যমে গাছের বৃদ্ধি করুন। এছাড়া ফুল (Flower) বা ফুলের গাছ কম-বেশি সকলেই পছন্দ করেন। বাড়িতে ফুল গাছ থাকলেও বাড়ির সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি হয়। পাশাপাশি পুজোতেও বিভিন্ন ফুল ব্যবহার করা হয়। এমন‌ই এক ফুল গাছ হল ‘জবা’। মা কালীর পুজোয় ব্যবহৃত হয়ে থাকে এই ফুল।

জবা গাছ লাগানোর পর নিয়মিত উপযুক্ত পরিচর্যার দরকার হয়। কারণ এই গাছে প্রায় সাদা পোকার উপদ্রব, পাতা কুঁকড়ে যায় বা ফুল ফোটে না। তবে এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। জেনে নিন কী কী দরকার….

লাল পটাশ- জবা গাছের জন্য লাল পটাশ ভীষণ উপকারী। এই সার ব্যবহার করলে গাছে প্রচুর কুঁড়ি হবে ও ফুল ফুটবে। এছাড়া ফুলের গঠন‌ ভালো হবে। মাসে একবার গাছের গোড়ায় ১ চামচ লাল পটাশ প্রয়োগ করতে হবে।

কলার খোসা- লাল পটাশের পরিবর্তে গাছের গোড়ায় কলার খোসার সারও ব্যবহার করা যেতে পারে। কলার খোসা বেশ কিছুদিন রেখে শুকিয়ে মিশ্রণটি গাছের গোড়ায় দিলে ভালো ফলাফল মিলবে।

এপসাম সল্ট– জবা গাছের গোড়ায় এপসাম সল্ট (Magnesium Sulphate Salt) দিলেও গাছের পাতা কুঁকড়ে যাওয়া, কুঁড়ি হলুদ হয়ে ঝরে যাওয়া সমস্যাগুলি দূর হবে।

Related Articles