×

দীর্ঘ ২৮ বছরের কেরিয়ারে কলঙ্ক! অবশেষে মুখ খুললেন অভিনেত্রী পুষ্পিতা মুখার্জি

বাংলা ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম জনপ্রিয় মুখ পুষ্পিতা মুখোপাধ্যায়, বাংলার ছোট এবং বড় উভয় পর্দাতেই দাপিয়ে রাজত্ব করছেন এই অভিনেত্রী।

বাংলা ইন্ডাস্ট্রির অন্যতম জনপ্রিয় মুখ পুষ্পিতা মুখোপাধ্যায়। বাংলার ছোট এবং বড় উভয় পর্দাতেই দাপিয়ে রাজত্ব করছেন এই অভিনেত্রী। তবে বর্তমানে নায়ক-নায়িকার একাধিক খবরের ভিড়ে ঢাকা পড়ে যায় এসব পার্শ্ববর্তী অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। তাঁদের জীবনেও একাধিক সংবাদ রয়েছে, সেটিও সবসময় সকলের সামনে আসেনা। নব্বইয়ের দশকের টেলিভিশনের একজন অতি পরিচিত মুখ পুষ্পিতা মুখোপাধ্যায় (Pushpita Mukherjee)।

টেলিভিশন থেকে তাঁর কেরিয়ার শুরু হলেও বড় পর্দাতেও তাঁর বেশ আনাগোনা ছিল। প্রসেনজিৎ-ঋতুপর্ণা অভিনীত একাধিক সিনেমায় তিনি প্রসেনজিৎ বোন বা ঋতুপর্ণার বান্ধবীর চরিত্রেও অভিনয় করেছেন। তাঁর অভিনয়ও দারুণ নজরকাড়া।একসময় অভিনয় করেছেন ডেয়ারডেভিল টিনএজ চরিত্রেও। পজিটিভ কিংবা নেগেটিভ দুই চরিত্রেই তিনি সমান মানানসই। যদিও এখন তাঁকে সিনেমার পর্দায় দেখা যায়না। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে অভিনেত্রীর দামটাও কমেছে।

বর্তমানে তিনি বেশিরভাগ সিরিয়ালেই মা অথবা কাকিমার চরিত্রে অভিনয় করেন। তবে আজকাল যে কোনও অভিনেত্রীকেই অল্প কিছু বেফাঁস কথা বলেই বিতর্কে জড়াতে দেখা যায়। তবে আঠাশ বছর কেরিয়ারে পুষ্পিতাকে কোনোদিনই বিতর্কে জড়িয়ে পড়তে দেখা যায়নি। কিন্তু বর্তমানে তাঁর সহ অভিনেত্রী সঙ্ঘমিত্রা ভট্টাচার্য (Sanghamitra Bhattacharya)- র একটি অভিযোগের কারণে মানসিকভাবে বিধ্বস্ত পুষ্পিতা। বর্তমানে দুজনেই অভিনয় করছেন নতুন ধারাবাহিক ‘সোহাগ জল’-এ।

সঙ্ঘমিত্রার অভিযোগ, জি বাংলায় সম্প্রচারিত এই নতুন ধারাবাহিকের মেকআপ রুম থেকেই নাকি পুষ্পিতা তাঁকে বেরিয়ে যেতে বাধ্য করেছিলেন। এই অভিযোগের ভিত্তিতে এতদিন চুপ করে থাকলেও এবার নীরবতা ভেঙে পুষ্পিতা জানালেন, তাঁর দুইবার করোনা হয়েছিল। এই কারণে ফুসফুসের অবস্থা যথেষ্ট খারাপ হয়ে যায়। এরপর থেকেই তিনি কোনো কাজ শুরু করার আগে প্রযোজনা সংস্থার সঙ্গে কথা বলে নেন আলাদা মেকআপ রুমের জন্যে। আর এই কথা বলতে গিয়ে রীতিমতো কেঁদে ফেলেন পুষ্পিতা।

পুষ্পিতার মতো সিনিয়র অভিনেত্রীর জন্যে প্রযোজনা সংস্থার তরফ থেকে অবশ্যই তাঁকে একটি আলাদা মেকআপ রুম দেওয়া উচিত ছিল। পুষ্পিতা আরও জানান, তিনি সঙ্ঘমিত্রার সঙ্গে এই ব্যাপারে কোনো কথাই বলেননি। তিনি শুধু বলেছিলেন, একটি আলাদা মেকআপ রুম হলে ভালো হত। তখন ওই সদস্য সঙ্ঘমিত্রার জন্য আলাদা মেকআপ রুমের ব্যবস্থা করে দেন। শুধুমাত্র প্রচারের জন্য সঙ্ঘমিত্রা এই ধরনের অভিযোগ এনেছেন। প্রসঙ্গত, পুষ্পিতার স্বামী দিল্লিতে কর্মরত। তাঁর বাবা ক্যান্সারে আক্রান্ত। বাবার দেখভাল পুষ্পিতাই করেন।

Related Articles