×

ঐন্দ্রিলার এই ৫টি সিরিয়াল ও সিনেমা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে দর্শকদের মনে

টানা ২০ দিন কঠিন যুদ্ধের পর অবশেষে রবিবার না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা।

টানা ২০ দিন কঠিন যুদ্ধের পর অবশেষে রবিবার না ফেরার দেশে পাড়ি দিয়েছেন অভিনেত্রী ঐন্দ্রিলা শর্মা (Aindrila Sharma)। পরপর দুবার ক্যান্সারকে হারিয়ে শেষমেষ ব্রেন স্ট্রোক ও হার্ট অ্যাটাকের কাছে হার স্বীকার করতে হয়েছে অভিনেত্রীকে।‌ অসুস্থ থাকাকালীন জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষ অভিনেত্রীর সুস্থতা কামনায় গোটা সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে করেছিল প্রার্থনা। সকলেরই একটি উদ্দেশ্য ছিল যে আবার স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসুক তাঁদের প্রিয় অভিনেত্রী। কিন্তু রবিবার দুপুরে সমস্ত ভালোবাসাকে ঠুকরে তারাদের দেশে পাড়ি দিলেন ঐন্দ্রিলা।

তবে ঐন্দ্রিলার লড়াইটা শুধুমাত্র কুড়ি দিনের বললে ভুল হবে। দীর্ঘ বছর ধরে মারণরোগ ক্যান্সারের সাথে চলছিল তাঁর ধুন্ধুমার লড়াই। ২০১৭ সালে প্রথম মারণ রোগ ক্যান্সার থাবা বসায় তাঁর শরীরে। আর সেসময়ই তিনি ‘ঝুমুর’ ধারাবাহিকের মাধ্যমে দর্শকদের নজরে আসেন। এমনকি এই ধারাবাহিক থেকেই তাঁর সাথে পরিচয় হয় অভিনেতা সব্যসাচী চৌধুরীর। সেই থেকে ধীরে ধীরে বন্ধুত্ব থেকে গড়ে ওঠে তাঁদের ভালবাসার সম্পর্ক। এরপর অভিনেত্রী একাধিক ধারাবাহিকে কাজ করেন।

২০২১ সালে সম্প্রচারিত জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘জিয়নকাঠি’-তে অভিনয় করতে দেখা যায় ঐন্দ্রিলাকে। তবে শুধুমাত্র ধারাবাহিকই নয় বরং চলচ্চিত্র জগতেও নিজের নাম তৈরি করেন তিনি। ২০২০ সালে মুক্তি পাওয়া ‘আমি দিদি নাম্বার ওয়ান’ সিনেমার মাধ্যমে তিনি পা রাখেন সিনেমার জগতে। এই সিনেমায় তাঁর বিপরীত চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন ‘মিঠাই’ ধারাবাহিকের নায়ক সিদ্ধার্থ। এরপর ‘লাভ ক্যাফ’ সিনেমায় অভিনয় করতে দেখা যায় তাঁকে। যেখানে তাঁর বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন অভিনেতা হৃতজিৎ মুখোপাধ্যায়।

দুবার মারণরোগ ক্যান্সারকে হারিয়ে যখন স্বাভাবিক জীবনের ছন্দে ফিরতে শুরু করেন তিনি তখনও অভিনেত্রীকে দেখা যায় আবার কাজে ফিরতে। মৃত্যুর আগে পর্যন্তও তিনি ‘ভাগার’ নামক একটি ওয়েব সিরিজে যথেষ্ট দক্ষতার সাথে অভিনয় করেছিলেন। এছাড়া তাঁর হাতে ছিল বেশ কিছু প্রজেক্ট। জানা যায় সম্প্রতি একটি ওয়েব সিরিজের শুটিং করতে গোয়া যাওয়ার কথা ছিল অভিনেত্রীর। কিন্তু তাঁর আগেই তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পরেন। আর হয়তো তিনি নিজেও জানতেন না যে এখানেই থেমে যাবে তাঁর অভিনয় যাত্রা। আর কোনোদিন ফিরতে পারবেন না ক্যামেরার সামনে।

Related Articles