×

৭৩ বছর বয়সেও কমেনি গ্ল্যামার, ফাঁস হল ড্রিম গার্ল হেমা মালিনীর স্কিন কেয়ার রুটিন

বলিউডের প্রথম সারির নায়িকার মধ্যেই অন্যতম ড্রিমগার্ল হেমা মালিনী।

বলিউডের প্রথম সারির নায়িকার মধ্যেই অন্যতম ড্রিমগার্ল হেমা মালিনী। যার রূপের যাদুতে আজও মুগ্ধ সবাই। এককালে বলিউডের এই নায়িকার পেছনে পড়ে
থাকতো একাধিক অভিনেতারাও। পরে কিংবদন্তি অভিনেতা ধর্মেন্দ্রকে মন দেন হেমা মালিনী, ধর্মেন্দ্রর দ্বিতীয় স্ত্রী হাতেও রাজি হয়ে যান তিনি। বর্তমানে তাঁদের দুই সন্তান। তাঁর
অভিনয়, নাচ, ব্যক্তিত্ব, সৌন্দর্য সবেতেই আজও ভিরমি খায় গোটা দেশবাসী। হেমা মালিনী হাসলে আজও মুক্তো ঝরে। কাঁদলে পরে পান্না। ৭৬ বছর বয়সেও তাঁর ফিটনেস দেখে হার মানাবে হাজার হাজার তরুণীরাও। কীভাবে নিজেকে এতটা ফিট রাখেন হেমা? হ্যাঁ আজ সেটাই জানাবো আপনাদের।

যোগাসন: যোগাসনে ব্যাপক আস্থা হেমার। তিনি দিন শুরু করেন প্রাণায়াম দিয়ে। তাঁর কথায়, নিয়মিত প্রাণায়াম করলে শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বাড়ে। ফলে শরীরে টক্সিক পদার্থ বেরিয়ে যায়।

সাবান নয়: সাবান মাখেন না হেমা। বদলে ব্যবহার করেন ঘরোয়া টোটকা। বেসন এবং দুধের মালাই সাবানের পরিবর্তে ব্যবহার করেন তিনি।

পরিষ্কার খাওয়াদাওয়া: হেমা নিরামিষাশী। মাছ, মাংস তো দূর ডিমও কি খান না তিনি। তাঁর প্রতিদিনের ডায়েটে থাকে প্রচুর শাকসবজি।

উপোস: সপ্তাহে দু’দিন উপোষ করেন হেমা। বিউটি রুটিনের জন্যে উপোসের দিন ভাত বা আটার কোনো খাবার খান না তিনি। তাঁর যুক্তি, উপোস করলে শরীরের প্রদাহজনিত সমস্যা দূর হয়।

হাইড্রেটেড: শরীর হাইড্রেটেড থাকলে ত্বক থাকে উজ্জ্বল। হেমা মালিনী প্রতিদিন ২ থেকে ৩ লিটার জল খান। তাঁর মতে পর্যাপ্ত জল শরীরকে ডিটক্সিফাই করে।

অ্যারোমা অয়েল: হেমা মালিনীর গাল জোড়া আপেলের মতো টুকটুকে লাল। ৭৩ বছর বয়সেও তাঁর মাথাভর্তি চুল। আসলে মুখে এবং চুলে অ্যারোমা অয়েল ব্যবহার করেন তিনি, তাই ত্বক ও চুল তাঁর ঝকঝকে থাকে।

Related Articles