×

মৃত্যুশয্যায় মায়ের পাশে বসেই ডায়লগ মুখস্থ করতে হয়েছে, সিনেমার গল্পকেও হার মানাবে শ্রীপর্ণার জীবনকাহিনী

বঙ্গ ধারাবাহিক জগতের একজন জনপ্রিয় সুন্দরী অভিনেত্রী হলেন 'শ্রীপর্ণা রায়'।

বঙ্গ ধারাবাহিক জগতের একজন জনপ্রিয় সুন্দরী অভিনেত্রী হলেন ‘শ্রীপর্ণা রায়’ (Shriparna Roy)। টলি পাড়ার অন্যান্য অভিনেত্রীদের মতোই তিনিও দর্শকদের মনে একটি আলাদা জায়গা করে রয়েছেন। কখনো পারমিতা, কখনো টুসু আবার কখনো পার্বতী চরিত্রে তিনি দর্শকদের মাঝে ধরা দিয়েছেন। তবে মানুষের আলোকিত জীবনের পেছনে যে কতটা অন্ধকার লুকিয়ে থাকে তা এবার প্রমাণ করে দিলেন অভিনেত্রী শ্রীপর্ণা রায়।

এককালীন বাংলা ধারাবাহিক জগতে তাঁর অভিনয়ের মাধ্যমে তিনি ভালো একটি জায়গা দখল করলেও বর্তমানে অভিনয় জগত থেকে বেশ দূরত্ব রেখেছেন তিনি। শেষবারের মতো অভিনেত্রীকে দেখা গিয়েছিল জনপ্রিয় বাংলা ধারাবাহিক ‘কড়ি খেলা’-র মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করতে। সেখানে তিনি পারমিতা নামক এক মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন। এছাড়াও সুপারস্টার দেবের অভিনীত সিনেমা ‘টনিক’-এও দেখা মিলেছিল তাঁর।

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে নিজের জীবনের চড়াই-উতরাইয়ের গল্প সকলের সাথে শেয়ার করলেন অভিনেত্রী। জানালেন সাধারণ একটি পরিবার থেকে কিভাবে তিনি উঠে এলেন অভিনয় জগতে। অভিনেত্রী জানান, তিনি ছোটোবেলা থেকেই অভিনয়ের প্রতি ভীষণ আগ্ৰহী ছিলেন। অবশ্য অভিনেত্রীর পরিবার তাঁকে এ বিষয়ে সাপোর্ট করতেন। একবার তিনি একটি অডিশনে হাজির হলে তাঁকে একটি ভয়ঙ্কর স্টান্ট করতে বলা হয় এবং সেটি অভিনেত্রী নির্দ্বিধায় করে ফেলেন।

তবে এসবের পাশাপাশি ব্যক্তিগত জীবনে বেশ আঘাত সহ্য করতে হয়েছে অভিনেত্রীকে। অভিনেত্রী বলেন, তাঁর মা যখন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তখন তাঁর মায়ের বেডের পাশে বসে ডায়লগ মুখস্ত করতে হয়েছিল তাঁকে। অভিনেত্রীর মা শয্যাশায়ী থাকাকালীন শুটিংয়ের কাজে যেতে হয়েছিল অভিনেত্রীকে। এমনকি তাঁর মায়ের মৃত্যুর পরের দিন পর্যন্ত অভিনেত্রীকে শুটিং-এ যেতে হয়েছিল। কারণ তাঁকে বলা হয়েছিল যে তিনি যদি শুটিং-এ না যান তাহলে তাঁকে সেই চরিত্রটি থেকে বাদ দেওয়া হবে। এমনকি একসময় টিআরপি কমে যাওয়ার বাহানায় অভিনেত্রীকে বাদও দেওয়া হয়েছিল। যদিও এ ধরনের অভিজ্ঞতার সম্মুখীন অভিনেত্রী একা নন। এর আগেও এধরনের পরিস্থিতির শিকার হয়েছেন বহু টলি তারকারা।

Related Articles