×

হঠাৎ করেই রাতারাতি সুন্দরী হয়ে উঠলেন কাজল কন্যা নাইসা! সত্যিটা ফাঁস করলেন অভিনেত্রী নিজেই

বলিউডের অন্যান্য স্টারকিডদের মতো কিশোর বয়স থেকেই পাপারাজ্জিদের ক্যামেরার নজরে এসেছেন অজয় ও কাজলের কন্যা নায়সা।

বর্তমানে প্রতিটি সংবাদপত্রের শিরোনাম জুড়ে একটিই খবরে সরগরম। হঠাৎ করে কিভাবে সুন্দরী হয়ে উঠলেন বলিউড তারকা অজয় দেবগন (Ajay Devgan) ও কাজল (Kajol) এর কন্যা নায়সা দেবগন (Nysa Devgan)? হঠাৎ কিভাবে ঘটলো এই ‘মিরাকল’। হঠাৎ করে কিভাবে এতটা সুন্দরী হয়ে ওঠার পেছনে রহস্যটা কি? তবে কি শেষমেশ প্লাস্টিক সার্জারি করে রূপ বদলেছেন এই স্টারকিড? বর্তমানে বিটাউনে সকলের মুখে এই একটি প্রশ্ন ঘোরাফেরা করছে।

বলিউডের অন্যান্য স্টারকিডদের মতো কিশোর বয়স থেকেই পাপারাজ্জিদের ক্যামেরার নজরে এসেছেন অজয় ও কাজলের কন্যা নায়সা। কোথাও ঘুরতে যাওয়া থেকে শুরু করে ব্যক্তিগত জীবন সবসময়ই ক্যামেরার লেন্স তাঁর পেছনে ঘিরে থাকে। আর থাকবে নাই বা কেন হাজার হোক স্টারকিড বলে কথা।‌ তবে সম্প্রতি এই স্টারকিডকে ঘিরে উঠেছে নানা রকম প্রশ্ন। কারণ সম্প্রতি লক্ষ্য করা গিয়েছে নায়সার চেহারায় এসেছে আমূল পরিবর্তন। গায়ের রং থেকে শুরু করে রূপের জেল্লা সবেতেই পরিবর্তন এসেছে তাঁর।

তবে কি সুন্দরী হতে শেষমেষ প্লাস্টিক সার্জারি করিয়েছেন অজয় কন্যা? এবার সকলের সেই প্রশ্নের উত্তর দিলেন স্বয়ং তাঁর মা অর্থাৎ কাজল। সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, “নায়সা সারাক্ষণ ইন্টারনেটে ব্রাউজিং করে। রূপচর্চা এবং স্বাস্থ্য নিয়ে ও একটু বেশিই সচেতন। সপ্তাহে অন্তত তিনবার একটি করে ফেসমাস্ক লাগায়। আমাকেও করতে বলে। ও ঠিক ওর বাবার মতো, চেহারা বা স্বাস্থ্য নিয়ে সচেতন।”

তবে শুধুমাত্র কসমেটিক নয়, বরং নায়সার রূপের জন্য রয়েছে তাঁর খাদ্যাভাসও। এমনটাই জানিয়েছেন নায়সার মা কাজল। তিনি নায়সার খাদ্যাভাস প্রসঙ্গে বলেন, “নায়সা প্রতিদিন সকালে উঠে ২-৩ গ্লাস ইষদুষ্ণ জল খায় খালি পেটে। এতে ওর পাকস্থলী ঠিক থাকে। তারপর ও জলখাবারে খায় সেদ্ধ ডিম, টাটকা ফল এবং ওটস। সারাদিন এমনই স্বাস্থ্যকর খাওয়া দাওয়ার অভ্যাস বজায় রাখে নায়সা।” ফলে নায়সার রূপের জাদু যে কোনোভাবেই প্লাস্টিক সার্জারি নয় তা সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করেছে কাজল ঘরণী।

Related Articles