×

‘মাত্র ১১ টাকা পারিশ্রমিক চাইল’, অরিজিৎ সিংয়ের জীবন-দর্শনে মুগ্ধ শ্রীজাত

সুরের জগতের অন্যতম সম্রাট অরিজিৎ সিং, বলিউডে তাঁর উত্থান ২০১৩ সাল থেকে।

সুরের জগতের অন্যতম সম্রাট অরিজিৎ সিং। বলিউডে তাঁর উত্থান ২০১৩ সাল থেকে। তখনও হয়তো তিনি জানতেন না যে, আজ তিনি বলিউডের মেলোডি কিং হিসেবে পরিচিত হবেন। কারণ প্রথম গুরুকুলে অংশগ্রহণ করেও বিজেতা হতে পারেননি অরিজিৎ। আজ দেখুন, তিনি গোটা বিশ্বকে তাঁর সুরের মূর্ছনায় ডুবিয়ে রেখেছেন। তাঁর কন্ঠের মাধ্যমে তিনি আজ হাজার হাজার মানুষের হৃদয়ে রাজত্ব করছেন। দেশ-বিদেশ জুড়ে লক্ষ লক্ষ ফ্যান ফলোয়ারস। তবে তিনি শুধু কণ্ঠেই নয়, বাস্তব জীবনেও রাজা, তাঁর ব্যক্তিত্ব প্রতিনিয়ত মানুষের মনক জয় করে নিচ্ছে। খ্যাতির শীর্ষে থেকেও কতটা সাধারণভাবে জীবন-যাপন করা যায় অরিজিৎ সিং’ তা প্রতিনিয়ত চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছেন।

এবার সেটাই আরও একবার স্বীকার করলেন, কবি-গীতিকার-পরিচালক শ্রীজাত। আগামী শুক্রবার মুক্তি পেতে চলেছে শ্রীজাত পরিচালিত প্রথম ছবি ‘মানবজমিন’। এই ছবির অন্যতম বড় আকর্ষণ অরিজিৎ সিং-এর কন্ঠে গাওয়া ‘মন রে কৃষিকাজ জানো না’ গানটি। এর আগে খাদের ‘আলোয় আলো’ গানটি গেয়ে বাঙালিদের মনে চিরকালের জন্যে রাজত্ব করতে বসে গিয়েছেন অরিজিৎ। এবার ‘মানবজমিন’-এর নয়া গান। শ্রীজাতর আবদারেই প্রথমবার রামপ্রসাদি গান রেকর্ড করেছেন অরিজিৎ। কিন্তু শুনলে অবাক হবেন, এই গানের পারিশ্রমিক হিসেবে প্রথমে কোনও টাকাই নিতে চাননি জিয়াগঞ্জের ভূমিপুত্র!

হ্যাঁ, সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শ্রীজাত নিজেই জানান, ‘আমি যখন গানটা গাওয়ার পর ওর কাছে পারিশ্রমিকের কথা জিজ্ঞাসা করি, ও বলল-না, ‘আমি তোমার থেকে পারিশ্রমিক নেব না’। আমি পালটা বলি, নিতে তো হবেই ভাই। এরপর জবাব এল, ‘আচ্ছা ঠিক আছে এক কাজ করো, আমি তো ফেস্টিভ্যাল উদ্বোধনে কলকাতায় যাচ্ছি, তখন তুমি আমাকে ১১টাকা দিয়ে দিও। আমি বললাম, দেখো এটা (মিউজিক রাইটস) তো সোনি এন্টারটেনমেন্ট কিনছে, তাঁদের তো কনট্রাক্টে বলা যাবে না অরিজিৎ সিং ১১ টাকা পারিশ্রমিক নিয়েছে। সেইসময় অরিজিৎ বলল, ‘আচ্ছা ঠিক আছে শ্রীজাতদা, আমি একটা বাচ্চাদের স্কুল চালাই তাহলে যা দেওয়ার তুমি ওদের দিয়ে দাও, পুজোর জামা হয়ে যাবে’। শ্রীজাত আরও বলেন, ‘অরিজিৎ সিং-এর জীবনযাপন এত বেশি সাদামাটা যা এই স্তরের খ্যাতিলাভের পর বজায় রাখা খুব মুশকিল, প্রায় অসম্ভব। এই জন্য আমি বলি অরিজিৎ সিং-কে দেখা যায়, কিন্তু ছোঁয়া যায় না’।

অরিজিৎ প্রসঙ্গে শ্রীজাত আরও জানান, তিন মাস ধরে পান্নালাল ভট্টাচার্য এবং ধনঞ্জয় ভট্টাচার্যের গলায় ‘মন রে কৃষিকাজ জানো না’ গানটি শুনে মাত্র একরাতে রেকর্ড করেছিলেন অরিজিৎ। স্বাভাবিকভাবেই এবারেও তিনি রাজত্ব করে নিয়েছেন সকলের মন। পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদের ছেলে হয়েও বলিউডের মতো একটি দুর্দান্ত জায়গায়, নিজেকে সু প্রতিষ্ঠিত করেছেন গায়ক, সম্পূর্ণ নিজস্ব দক্ষতায়। তাঁর সাদামাটা স্বভাব, সেলিব্রিটি তকমা মাটিতে মিশিয়ে সাধারণভাবে ঘুরে বেড়ানো, বিনে পয়সায় জিয়াগঞ্জের পড়ুয়াদের ইংরেজি শেখানোর দায়িত্ব নেওয়া সবটাই তাঁকে খ্যাতিমান করে তুলছে দিনের পর দিন।

Related Articles